একটিভ ফাইনের মুনাফার নামে প্রতারনা!

   December 1, 2019

এফ জাহান ও মোবারক হোসেন, দেশ প্রতিক্ষণ, ঢাকা : পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত ওষুধ ও রসায়ন খাতের কোম্পানি একটিভ ফাইন কেমিক্যালস লিমিটেড ডিভিডেন্ডের নামে বিনিয়োগকারীদের সাথে প্রতারনা করছে। কোম্পানিটি ক্যাটাগরি ধরে রাখার জন্য নামমাত্র ডিভিডেন্ড দিয়েছে। এছাড়া গত পাঁচ বছরের মধ্যে কোম্পানিটির ইপিএস হঠাৎ কমার কারণ কি এ নিয়ে বিনিয়োগকারীদের মাঝে নানা প্রশ্ন দেখা দিয়েছে। একদিকে কোম্পানির ইপিএস কমছে, অন্যদিকে ডিভিডেন্ড কমছে।

বিনিয়োগকারীদের প্রশ্ন একটিভ ফাইন সমাপ্ত অর্থবছরে ৭১ কোটি মুনাফা করলেও বিনিয়োগকারীদের নামমাত্রা ২ শতাংশ ডিভিডেন্ড ঘোষণা করে। এর পুরোটাই নগদ ডিভিডেন্ড। অর্থাৎ ৭১ কোটি টাকা মুনাফা করলে বিনিয়োগকারীরা পাবে ৫ কোটি টাকা। বিনিয়োগকারীদের টাকায় কোম্পানিগুলো ব্যবসায় করলেও বিনিয়োগকারীদের প্রকৃত ডিভিডেন্ড থেকে বঞ্চিত করছে। এ কোম্পানির ইপিএস ও ডিভিডেন্ড বিষয় তদন্ত করার দাবি জানিয়েছেন বিনিয়োগকারীরা। কোম্পানিটির আলোচিত সময়ে শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ২ টাকা ৯৭ পয়সা।

একাধিক বিনিয়োগকারীরা অভিযোগ করে বলেন, একটিভ ফাইন ৭১ কোটি টাকা মুনাফা করলে কি ভাবে ২ শতাংশ ডিভিডেন্ড দেয়। এরচেয়ে কম মুনাফা করা কোম্পানি এবার ভাল ডিভিডেন্ড দিয়েছে। কোম্পানিটির ডিভিডেন্ড ও ইপিএস নিয়ে আমাদের ভোদগম্য নয়। এ কোম্পানিটি ইপিএস ও ডিভিডেন্ডের নামে প্রতারনা করছে।

নিয়ন্ত্রক সংস্থা বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ এন্ড এক্সচেঞ্জ কমিশন (বিএসইসি) কে বিষয়টি তদন্ত করার দাবি জানিয়েছেন তারা।

ডিএসই সুত্রে জানা গেছে, একটিভ ফাইন কেমিক্যালসের ২০১৮-১৯ অর্থবছরের ব্যবসায় প্রায় ৭১ কোটি টাকা মুনাফা হয়েছে। তবে কোম্পানিটির পর্ষদ এই মুনাফা থেকে শেয়ারহোল্ডারদের মাঝে মাত্র ৫ কোটি টাকা বা মুনাফার ৭ শতাংশ লভ্যাংশ আকারে বিতরনের সিদ্ধান্ত নিয়েছে। বাকি ৯৩ শতাংশ কোম্পানিতেই রাখা হবে। তবে আগামি অর্থবছর থেকে ৭০ শতাংশের বেশি রিজার্ভে রাখার ক্ষেত্রে কোম্পানিটিকে অতিরিক্ত কর গুণতে হবে।

২০১৮-১৯ অর্থবছরের অনুমোদিত বাজেট অনুযায়ি, শেয়ারবাজারে তালিকাভুক্ত কোনো কোম্পানি কোনো অর্থবছরে কর পরবর্তী নিট লাভের সর্বোচ্চ ৭০ শতাংশ রিজার্ভে স্থানান্তর করতে পারবে। অর্থাৎ কমপক্ষে ৩০ শতাংশ লভ্যাংশ দিতে হবে। যদি কোনো কোম্পানি এরূপ করতে ব্যর্থ হয়, তাহলে প্রতিবছর রিজার্ভে সরবরাহকৃত অংশের উপর ১০ শতাংশ হারে কর আরোপ করা হবে। যা আগামি অর্থবছর থেকে কার্যকর হবে।

একটিভ ফাইনের ২০১৮-১৯ অর্থবছরে শেয়ারপ্রতি ২.৯৭ টাকা হিসেবে মোট ৭১ কোটি ২৬ লাখ টাকার নিট মুনাফা হয়েছে। এরমধ্য থেকে ২ শতাংশ বা শেয়ারপ্রতি ০.২০ টাকা হিসাবে মোট ৪ কোটি ৮০ লাখ টাকার নগদ লভ্যাংশ বিতরন করা হবে। অর্থাৎ মুনাফার ৬.৭৪ শতাংশ শেয়ারহোল্ডারদের মাঝে বিতরন করা হবে। মুনাফার বাকি ৬৬ কোটি ৪৬ লাখ টাকা বা ৯৩.২৬ শতাংশ রিজার্ভে রাখা হবে। ২৩৯ কোটি ৯৪ লাখ টাকা পরিশোধিত মূলধনের একটিভ ফাইনে ১৩৫ কোটি ৫ লাখ টাকার রিজার্ভ রয়েছে।

বাজার বিশ্লেষণে আরো দেখা যাচ্ছে, কোম্পানিটি ধারাবাহিক মুনাফা করছে। গত পাঁচ বছরে ধরে কোম্পানিটির মুনাফা ধারাবাহিক বাড়লেও সে হারে ডিভিডেন্ড বাড়েনি। এর মধ্যে কোম্পানিটি ২০১৫ সালে মুনাফা করে ৪৫ কোটি ৫৬ লাখ ৮ হাজার টাকা। ঐ সময় কোম্পানির ইপিএস ছিল ৩ টাকা ৭ পয়সা। কোম্পানিটি ২০১৬ সালে মুনাফা করে ৬৭ কোটি ৮১ লাখ ৭ হাজার টাকা। ঐ সময় কোম্পানির ইপিএস ছিল ৫ টাকা ৫১ পয়সা। কোম্পানিটি ২০১৭ সালে মুনাফা করে ৫৫ কোটি ৩৮ লাখ ৯ হাজার টাকা। ঐ সময় কোম্পানির ইপিএস ছিল ৩ টাকা ৪৬ পয়সা। কোম্পানিটি ২০১৮ সালে মুনাফা করে ৮২ কোটি ৫৩ লাখ ৬ হাজার টাকা। ঐ সময় কোম্পানির ইপিএস ছিল ৪ টাকা ১৩ পয়সা। কোম্পানিটি ২০১৯ সালে মুনাফা করে ৭১ কোটি টাকা। ঐ সময় কোম্পানির ইপিএস ছিল ২ টাকা ৯৭ পয়সা। এছাড়া কোম্পানিটি শেয়ার প্রতি সম্পদ ধারাবাহিক ভাবে কমছে। এর মধ্যে কোম্পানিটির ২০১৫ সালে সম্পদ ছিল ২৬ টাকা ৮১ পয়সা, ২০১৬ সালে সম্পদ ছিল ২৮ টাকা ৫২ পয়সা, ২০১৭ সালে সম্পদ ছিল ২৪ টাকা ৪৫ পয়সা, ২০১৮ সালে সম্পদ ছিল ২৩ টাকা ৬৯ পয়সা।

এ ব্যাপারে বিনিয়োগকারী আজমত উল্লাহ বলেন, পুঁজিবাজারে এমনই স্মরনকালের ধ্বসে সাধারন বিনিয়োগকারীরা পুঁজি হারিয়ে মানবেতর জীবনযাপন করছে। এমন অবস্থায় একটিভ ফাইনের মতো একটি ভালো কোম্পানির বিনিয়োগকারীদের সাথে ডিভিডেন্ড ও ইপিএস নিয়ে প্রতারনা করছে। কোম্পানিটি ধারাবাহিক ভালো মুনাফা করলেও এবার ইপিএস ও ডিভিডেন্ডে ধ্বস নামছে। তিনি ক্ষোভের সাথে বলেন, বিনিয়োগকারীদের কোম্পানির প্রতি যদি আস্থা না থাকে তা হলে পুঁজিবাজারে কিসের ভিত্তিতে বিনিয়োগ করবে। একটিভ বিনিয়োগকারীদের সাথে প্রতারনা করছে। এ কোম্পানির এমডি থেকে পরিচালনা পর্যদের সকলের শাস্তি হওয়া উচিত।

পুঁজিবাজার বিশ্লেষক অধ্যাপক আবু আহমেদ বলেন, একটিভ ফাইন কোম্পানিতে বিনিয়োগ করে বিনিয়োগকারীরারা আজ সর্বশান্ত। এটা পুঁজিবাজার নয়, লুটের বাজার। এসব প্রতারক পরিচালকদের শাস্তি দাবী নিশ্চিত করতে পারলে বাংলাদেশ পুঁজিবাজারের হবে এশিয়া মহাদেশের মধ্যে সেরা পুঁজিবাজার। কোম্পানিগুলোর উদ্যোক্তা ও পরিচালকরা ফ্রড (প্রতারক)। নিয়ন্ত্রক সংস্থা বিএসইসি’র তদন্ত করে শাস্তির আওতায় আনা উচিত।

এ কারণে বর্তমানে পুঁজিবাজারে এমন দুরবস্থা বিরাজ করছে বলে মনে করছেন পুঁজিবাজার বিশ্লেষক আবু আহমেদ। তিনি বলেন, নিয়ন্ত্রক সংস্থা যখন নিজেদের দায়িত্ব সঠিকভাবে পালন করতে পারছে না, তখন বিনিয়োগকারীদেরকেই নিজের পুঁজি রক্ষায় উদ্যোগ নিতে হবে। বিএসইসি বিনিয়োগকারীদের কথা চিন্তা না করে গুটিকয়েক লোকের স্বার্থ হাসিলের সুযোগ করে দিচ্ছে। এ পরিস্থিতিতে বিনিয়োগকারীদের উচিত ওইসব দুর্বল কোম্পানির শেয়ার না কেনা। বিনিয়োগকারীরা টাকা দিয়ে কেন দুর্বল কোম্পানির শেয়ার কিনবে?

বিদেশী ঋণ বেসরকারি খাতে পরিশোধে নীতিমালা শিথিল

Admin  December 5, 2019

দেশ প্রতিক্ষণ, ঢাকা : বেসরকারি উদ্যোক্তারা শিল্পের কাঁচামাল আমদানির জন্য বিদেশী ঋণ নিলে তিন মাস পর থেকেই ঋণের কিস্তি পরিশোধ...

বাংলাদেশ ব্যাংকের কাছে বিএসইসি পুন:অর্থায়নের তহবিল চেয়েছে

Admin  December 5, 2019

দেশ প্রতিক্ষণ, ঢাকা : পুঁজিবাজারে তারল্য সংকট নিরসনে নিয়ন্ত্রক সংস্থা বিএসইসি বাংলাদেশ ব্যাংককে পুন:অর্থায়নের তহবিল থেকে ৮৯ কোটি টাকা বিতরণের...

পুঁজিবাজার দীর্ঘ মন্দায় আগ্রহ হারাচ্ছে নারী বিনিয়োগকারীরা

Admin  December 5, 2019

দেশ প্রতিক্ষণ, ঢাকা : দীর্ঘ অস্থিতিশীল পরিস্থিতির জন্য বাজারে বিনিয়োগে নারীরা আগ্রহ হারাচ্ছে বলে মনে করছেন বিশ্লেষকরা। ব্যবসা বাণিজ্যসহ অন্যান্য...

৮ কোম্পানীর আয় হলেও বোনাস দিতে পারছে না

Admin  December 5, 2019

দেশ প্রতিক্ষণ, ঢাকা : উদ্যোক্তা-পরিচালকদের ন্যূনতম শেয়ারধারণের বাধ্যবাধকতার প্রভাব পড়েছে কোম্পানির লভ্যাংশে। এতে ক্ষতির মুখে পড়েছেন অনেক কোম্পানির বিনিয়োগকারীরা। উদ্যোক্তা-পরিচালকদের...

একটিভ ফাইনের বিরুদ্ধে প্রতারণার অভিযোগ

Admin  December 4, 2019

এফ জাহান, দেশ প্রতিক্ষণ, ঢাকা : পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত ওষুধ ও রসায়ন খাতের কোম্পানি একটিভ ফাইন কেমিক্যালস লিমিটেডের বিরুদ্ধে শেয়ারহোল্ডারদের সঙ্গে...

জাহিন স্পিনিং শেয়ার নিয়ে কারসাজি!

Admin  December 4, 2019

দেশ প্রতিক্ষণ, ঢাকা : পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত বস্ত্র খাতের কোম্পানি জাহিন স্পিনিংয়ের শেয়ার নিয়ে কারসাজির অভিযোগ তুলছেন বিনিয়োগকারীরা। অভিযুক্ত সিন্ডিকেটের কাছেই...

পুঁজিবাজারে ১০ হাজার কোটি টাকার তহবিলের রূপরেখা জমা

Admin  December 4, 2019

দেশ প্রতিক্ষণ, ঢাকা : পুঁজিবাজারে ১০ হাজার কোটি টাকার তহবিলের রূপরেখা জমা দেওয়ার প্রস্তাব আরও একধাপ এগিয়েছে। বর্তমান পুঁজিবাজারের ত্রান্তিকালে...

মিরাকল ইন্ডাস্টিজের কারখানা বন্ধ নিয়ে লুকোচুরি!

Admin  December 4, 2019

মোবারক হোসেন, দেশ প্রতিক্ষণ, ঢাকা : পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত বিবিধ খাতের কোম্পানি মিরাকল ইন্ডাস্টিজের কারখানা বন্ধ নিয়ে চলছে লুকোচুরি। গত দুই...

বীমা ব্যবসা বাড়াতে ‘উইমেন্স উইং’ খোলার আহ্বান: ড. মোশাররফ

Admin  December 2, 2019

দেশ প্রতিক্ষণ, ঢাকা : মানসম্পন্ন বীমা পলিসি বিক্রি ও ব্যবসা বাড়াতে বীমা কোম্পানিগুলোতে ‘উইমেন্স উইং’ খোলার আহ্বান জানিয়েছেন এ খাতের...