দেশ প্রতিক্ষণ, ঢাকা: পুঁজিবাজার নিয়ন্ত্রক সংস্থা বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশন (বিএসইসি) সুযোগের অপব্যবহারের কারণে স্টক এক্সচেঞ্জে দিনের লেনদেন শুরু হওয়ার আগে ১৫ মিনিটের প্রি-ওপেনিং সেশন বাতিল করেছে। তবে ১৫ মিনিটের পোস্ট-ক্লোজিং সেশন চলবে। আগামী রোববার থেকে নতুন এই নির্দেশনা কার্যকর হবে বলে কমিশন সূত্রে জানা গেছে।



এর আগে ২০২০ সালের অক্টোবর বিএসইসি উভয় স্টক এক্সচেঞ্জে প্রি-ওপেনিং সেশন এবং পোস্ট-ওপেনিং সেশনের আবেদন অনুমোদন করে।ব্রোকারেজ হাউজগুলো প্রি-ওপেনিং সেশনে লেনদেনের শুরুতে শেয়ার ক্রয়-বিক্রয় আদেশ দিতে পারে। সেখানে নির্ধারিত সার্কিট ব্রেকার অনুযায়ী শেয়ারের দাম কমবেশি অর্ডার করা যায়।

অভিযোগ উঠেছে, প্রি-ওপেনিং সেশন সুবিধা ব্যবহার করে বেশ কিছু ব্রোকারেজ হাউজ অবাস্তব ক্রয়-বিক্রয় আদেশ দিচ্ছে। সার্কিট ব্রেকারে সর্বোচ্চ দামে বা সর্বনিম্ন দামে বিপুল পরিমাণ শেয়ার ক্রয়-বিক্রয় আদেশে বাজারে আতঙ্কের সৃষ্টি হয়। সূত্র জানায়, এই ধরনের ঘটনা বিএসইসির নজরে আসে। ইতোমধ্যে কমিশন বেশ কিছু বিনিয়োগকারী ও ব্রোকারেজ হাউজকে এই সম্পর্কে সতর্কও করেছে।

দেশের পুঁজিবাজারের সাম্প্রতিক দরপতনের সাথে এই প্রি-ওপেনিং সেশনের সংশ্লিষ্টতা আছে বলে অনেকের সন্দেহ। বাজারের কিছু আসাধু ব্যক্তি ও প্রতিষ্ঠান তাদের হীন উদ্দেশ্য পূরণ করার জন্য এই প্রি-ওপেনিং সেশনকে কাজে লাগাচ্ছিল। তারা লেনদেন শুরুর আগেই এমন কিছু অর্ডার বসাতো, যা দেখে সাধারণ বিনিয়োগকারীরা বিভ্রান্ত হয়ে পড়ে। তাদের মধ্যে আতঙ্ক ছড়ায়। এভাবে লেনদেনের শুরুতেই সূচককে নিম্নমুখী করে দেওয়া সহজ হয়ে উঠে। পরে এই ধারা থেকে বাজার আর বের হতে পারে না। এই আপতৎপরতা বন্ধের লক্ষ্যে প্রি-ওপেনিং সেশন স্থগিতের সিদ্ধান্ত নিয়েছে বিএসইসি।