দেশ প্রতিক্ষণ, নীলফামারী: নীলফামারী ডিমলা উপজেলার ঝুনাগাছ চাপানীর ছাতুনামা কেল্লাপাড়া গ্রামে প্যারাগনে জৈব সার তৈরীর বর্জ্যে দূষিত হচ্ছে পরিবেশ। এলাকাবাসী বলেন, ২০২০ সালের শেষে প্যারাগনে এগ্রো লিমিটেড জৈবসার তৈরির ১,২ নামে কেল্লাপাড়ায় দুটি শাখা স্থাপন করে। বিভিন্ন এলাকা থেকে নিয়ে আসা হয় বয়লার মুরগীর লিটার(বিষ্ঠা), গরুর গোবর, খামারের অপ্রয়োজনীয় খাদ্য, রাইচ মিলের ছাই(কয়লা) এই কারখানায়।



ছাতুনামা গ্রামের শাফিন জানায়, প্যারাগন কারখানার দুর্গন্ধে এলাকায় পরিবেশ অস্বাভাবিক হয়ে পড়ছে। জৈব সার তৈরি করার উপাদানগুলো যত্রতত্র ফেলার প্রাদুর্ভাবে সারা ছাতুনামা মৌজা জুড়ে গন্ধ আর গন্ধ। দলে-দলে বর্জ্যতে পড়া মাছি ভাতের পাতিলে, খাবার প্লেটে, পানি পান করার গ্লাসে লেগে আছে।

আব্দুল জব্বার নামের আরেকজন জানান, বর্জ্যর দুর্গন্ধের কারণে সেখানেও বসবাসের অনুপযোগী হয়ে উঠেছে। আমি আশা কোম্পানি যেন দুর্গন্ধ জনিত সকল বর্জ্য অতি দ্রুত মোচনের ব্যবস্থা গ্রহণ করেন।

গ্রামের বাসিন্দা বানেছা বলেন, বিষ্ঠার দুর্গন্ধে থাকা যায় না। রোদ উঠলে বাতাসে গন্ধ আরও বেশি ছড়িয়ে পড়ে। একই গ্রামের এলিজা বেগম বলেন, গন্ধে বমি আসে। তৃপ্তি নিয়ে খাওয়াদাওয়া করা যায় না। কল্পনা আক্তার বলেন, গন্ধে ঘুমাতেও কষ্ট হয়।

প্যারাগন এগ্রো (২) ম্যানেজার সারোয়ার হোসেন সোহাগ বলেন, আমরা গোবর, ছাই, বিষ্ঠা নিয়ে কাজ করি একটু তো গন্ধ থাকাটাই স্বাভাবিক। জৈব সার উৎপাদন করে দেশকে সহযোগিতা করতেছি। যেগুলো জমিতে পরীক্ষামূলক চালিয়েছি সেগুলো সফল ভাবে ফলন পেয়েছি। সরকার রেজিষ্ট্রেশন দিয়েছে আমার প্রতিষ্ঠানকে।

এবিষয়ে নীলফামারী জেলা পরিবেশ অধিদপ্তরের সহকারী পরিচালক কমল কুমার বর্মন বলেনে, প্যারাগন এগ্রো লিমিটেড জৈবসার তৈরি করতে গিয়ে পরিবেশ দূষণ করে থাকলে তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।